মাগুরার বাণী

শৈলকুপায় প্রধান শিক্ষকের হাতে সহকারী শিক্ষক লাঞ্চিত

শৈলকুপায়  প্রধান শিক্ষকের  হাতে  সহকারী শিক্ষক লাঞ্চিত

শৈলকুপা (ঝিনাইদহ)সংবাদদাতা:

ঝিনাইদহ জেলার শৈলকুপা উপজেলার গোবিন্দপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের উপবৃত্তির টাকা নিয়ে অভিভাবকের সামনে সহকর্মী শিক্ষককে পেটানোর অভিযোগ উঠেছে প্রধান শিক্ষক রাজিবুল ইসলামের বিরুদ্ধে। গত ৫ জানুয়ারী মঙ্গলবার এই ঘটনা ঘটে। প্রতিকার ও নিরাপত্তা চেয়ে পরের দিন বুধবার বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রাজিবুল ইসলামের বিরুদ্ধে সহকারী শিক্ষক সুজনুজ্জামান উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে সহ বিভিন্ন দপ্তরে একটি লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন । লিখিত অভিযোগে সহকারী শিক্ষক সুজনুজ্জামান জানান, গত ৫ জানুয়ারী তিনি স্কুলে উপবৃত্তি সংক্রান্ত কার্যাবলী সম্পন্ন করছিলেন। দুুপুর সাড়ে ১২টার দিকে বিদ্যালয়ে এসে একজন অভিভাবক তার কাছে অভিযোগ করেন তার সন্তান দুই বছর উপবৃত্তির টাকা পায়না । আমি তাকে প্রধান শিক্ষকের সাথে যোগাযোগ করতে বলি। তিনি প্রধান শিক্ষকের সাথে দেখা করলে অভিভাবককে পূনরায় সহকারী শিক্ষক সুজনুজ্জামানের সাথে দেখা করতে বলেন। এ নিয়ে অভিভাবকের সাথে আলোচনার সময় প্রধান শিক্ষক স্কুলে উপস্থিত হলে তাকে অভিভাবককে সহযোগীতার কথা বলার সাথে সাথে প্রধান শিক্ষক তাকে অকথ্য ভাষায় গালাগালি করে বাড়ি থেকে বাশ ও লোহার রড নিয়ে এসে তার উপর হামলা চালায়। এ সময় তাকে সহযোগীতা করেন তার ভাগ্নে আফান নামের এক যুবক। প্রান রক্ষায় তিনি লাইব্রেরীতে আশ্রয় নিলে সেখান থেকে সহকর্মীরা তাকে উদ্ধার করে শৈলকুপা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান।

এব্যাপারে বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক সুজনুজ্জামানকে প্রধান শিক্ষক মারপিঠ করার ঘটনায় একই স্কুলের অপর সহকারী শিক্ষক শহিদুল ইসলাম জানান উপবৃত্তির টাকা নিয়ে প্রধান শিক্ষক তার এক সহকর্মীর উপর চড়াও হন এবং গালাগালি করেন।
এব্যপারে প্রধান শিক্ষক রাজিবুল ইসলাম বলেন, উপবৃত্তির টাকা নিয়ে সহকারী শিক্ষক সুজনুজ্জামানের সাথে তার কথা কাটাকাটি তবে তাকে গায়ে হাত দেয়নি । এ ঘটনায় উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আকরাম হোসেন জানান, প্রধান শিক্ষক কর্তৃক সহকারী শিক্ষককে মারপিঠের একটি অভিযোগ তিনি পেয়েছেন। এ ঘটনায় একটি তদন্ত কমিটি করা হয়েছে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কানিজ ফাতেমা লিজার সাথে এ বিষয়ে কথা হলে তিনি জানান শিক্ষক মারপিঠের একটি অভিযোগ তিনি পেয়েছেন। তদন্ত করে প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তাকে ব্যবস্থা নিতে নির্দেশ দিয়েছি।

এ বিষয়ে স্কুলটির পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি রবিউল ইসলামের সাথে কথা হলে তিনি ঘটনার সত্যতার কথা স্বীকার করে বলেন এ বিষয়ে তারা দ্রুত একটি মিটিং করবেন বলে জানান। এব্যাপারে উপজেলা প্রাথমি শিক্ষা আফিসার মোঃ ইসলঅইল হোসেন জানান, আমি তিন সদস্যর একটি তদন্ত টিম করে দিয়েছি আগামী ১২ তারিখের ভিতরে তদন্ত রিপোট প্রদান করার জন্য।

মফিজুল ইসলাম শৈলকুপা ঝিনাইদহ /মাগুরার বাণী

শেয়ার করুন
  •  
    8
    Shares
  • 8
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *