মাগুরার বাণী

জাতীয় মৎস্য সপ্তাহেই মাগুরার পুকুরগুলো প্রকৃত মৎস্যজীবিদের নিয়ন্ত্রণে যাক!!

জাতীয় মৎস্য সপ্তাহেই  মাগুরার পুকুরগুলো প্রকৃত মৎস্যজীবিদের নিয়ন্ত্রণে যাক!!

সম্পাদকীয় কলামঃ

নানাবিধ মুখরোচক শ্লোগান ও কর্মসূচি নিয়ে শুরু হয় জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ ও মৎস্য পক্ষ- চলতি সপ্তাহে শুরু হয়েছে জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ ২০২০ – কিন্তু মাগুরায় মৎস্যজীবিদের নামে পুকুরগুলো নিয়ন্ত্রণ করছে তথাকথিত সমাজপতিরা। মাছ চাষের উপযোগী কতগুলো পুকুর, হাওর, বাওর,বিল কিংবা জলাশয়ের হিসেব নেই মাগুরা জেলা মৎস্য অফিসে। সরকারি পুকুরগুলোতে মাছচাষেে একাধিক সংগঠন গড়ে উঠলে ও এর পিছনে রয়েছে এলাকার প্রভাবশালীদের একক নিয়ন্ত্রণ।বছরের পর বছর মাছ চাষ করলে পুকুরগুলোর স্বাভাবিক গভীরতা বজায় রাখতে ওই প্রভাবশালী মহল খননের ব্যবস্থা করনি দীর্ঘদিন ধরে। মহাজোট সরকার ক্ষমতায় আসার পর জাতীয় পুকুর ব্যবস্থা নীতিমালা তৈরির উদ্যোগ নিলেও অদ্যবধি তা বাস্থবায়িত হয়নি। এদিকে নিজেস্ব মালিকানায় সরকারি পুকুরগুলোতে মাছচাষ করে মাগুরার মানুষের আমিষের যোগান দিতে ব্যর্থ হয়েছে জেলা মৎস্যঅফিস। সরকারি নিয়ন্ত্রণাধীন মাগুরা জেলার সরকারি পুকুরগুলোর ব্যবস্থাপনায় নিদিষ্ট কোন নীতি মালা বিগত ৪০ বছরেও তৈরি করতে পারেনি মৎস্য অফিস। ভূমি অফিস স্থানীয় সরকার ও প্রাণী সম্পদ মন্ত্রনালয়ের রশি টানাটানিতে সরকারি জলমহল ও পুকুরগুলোর অবস্থা মাছ চাষের অনুপযোগী হলেও মাথা ব্যাথা যেন নেই কারোর! মাছ চাষ করছে অন্যরা অথচ পুকুরগুলোর স্বাভাবিক গভীরতা বজায় রাখতে দূর্যোগ ব্যবস্থপনা বিভাগ থেকে বরাদ্দ নিয়ে খনন করা হচ্ছে। আবার অভিযোগ রয়েছে এসব পুকুর খননে কিংবা লীচ প্রদানে মৎস্যচাষি অথবা সুফলভোগীদের পুকুর পেতে কর্তাব্যক্তিদের দিতে হয় মোটা অংকের উৎকোচ। জেলা মৎস্য অফিস থেকে মাছচাষিদের আগ্রহী করে তুলতে প্রযুক্তিগত আধুনিক চাষাবাদ সম্পর্কে প্রশিক্ষণসহ আর্থিক সহযোগিতাও করা হয়ে থাকে চাষিদের মাঝে জেলা মৎস্য অফিস প্রায় ৩ লাখ টাকা ঋন প্রদান করেছেন- কিন্তু আদায় সন্তোষজনক নয় বলে জানা গেছে। এক পরিসংখ্যানে জানা গেছে মাগুরা জেলায় মোট পুকুর সংখ্যা ৮ হাজার ২শ ২২টি এর মধ্যে চাষ উপযোগী পুকুরের সংখ্যা ২ হাজার ২শ ২২টি। পরিসংখ্যানে উল্লেখিত পুকুর গুলো প্রকৃত মৎস্য চাষীদের নিয়ন্ত্রণে থাক এটায় এখন সময়ের দাবি।

মোঃ সাইফুল্লাহ্, সম্পাদক- মাগুরার বাণী

শেয়ার করুন
  •  
    109
    Shares
  • 109
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *